অনলাইন ডেস্ক:-

সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলায় ছেলের ধাক্কায় বাবার মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (২৬ মে) সকালে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। ঈদের আগের দিন রাতে উপজেলার দেয়াড়া ইউনিয়নের ছলিমপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মৃত নজরুল ইসলাম (৫৫) ছলিমপুর গ্রামের বাসিন্দা ও কলারোয়া সদরের ফুটপাতের জুতা বিক্রেতা। ছেলে নুরুল ইসলাম (১৭) কলারোয়ার হাজী নাসিরউদ্দীন কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র।

কলারোয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু বলেন, রোববার সারাদিন বাবা ও ছেলে একসঙ্গে জুতা বিক্রি করে সন্ধ্যায় বাড়িতে যান। এরপর গোসল সেরে ভাত খাওয়ার সময় বাবা-ছেলের ঝগড়া শুরু হয়। ছেলের ধাক্কায় আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে মাথা ফেটে যায় বাবা নজরুলের।

তিনি বলেন, এরপর তাকে উদ্ধার করে প্রথমে কলারোয়া হাসপাতাল; পরে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল থেকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। খুলনা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার সকালে তার মৃত্যু হয়।

দেয়াড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গাজী মাহবুবুর রহমান বলেন, নজরুল ইসলাম অভাবী মানুষ। ছেলে ঈদের সময় জামা দাবি করেছিল। কিন্তু দিতে পারেননি বাবা। রোববার রাতে ভাত খাওয়ার সময় বাবা-ছেলের মধ্যে এ নিয়ে ঝগড়া হয়। পরে ধাক্কা দিলে বাবা আহত হন।

কলারোয়া থানা পুলিশের ওসি মুনীর উল গিয়াস বলেন, ঈদের জামা কিনে না দেয়ায় ঝগড়ার এক পর্যায়ে ছেলের ধাক্কায় বাবা উঠানে ছিটকে পড়েন। এতে মাথায় আঘাত পান। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী মাজিদা বেগম মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মামলা করেছেন।