নিউজ ডেস্ক:

দেশের করোনা ভাইরাসের এমন থম থমে পরিস্থিতির সঙ্গে মোকাবেলা খুবই কষ্টসাধ্য ব্যাপার হয়ে দাড়িয়েছে জাতির জন্য, তাই ইতিমধ্যে দেশের সমুদ্র নগরী কক্সবাজার জেলায়ও শনাক্তের সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এমন পরিস্থিতি সামাল দিতে কক্সবাজার পৌরসভার মেয়রের প্রতি জেলা যুবলীগের যুবরাজ শহিদুল হক সোহেলের পরামর্শ।

পাঠকের পড়ার সুবিধার্তে তা নিম্নে সরাসরি তুলে ধরা হলো:

“মাননীয় মেয়র মহোদয় কক্সবাজার পৌরসভা..

আপনি একজন জননেতা। জনগণের সেবাই আপনার ব্রত। জনগণের মাঝেই আপনার বসবাস। এই পর্যন্ত জনগণের উপর যত ঝড়ঝাপটা এসেছে আপনি সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে সামনে থেকে তার মোকাবিলা করে জনগণের জানমাল রক্ষায় অগ্রণী ভুমিকা রেখেছেন। তাই আপনি জননেতা। বৈশ্বিক এই ক্রান্তিকালে আজ কক্সবাজার পৌরবাসী বড় অসহায় হয়ে পড়েছে। এই মহাবিপর্যয় থেকে পৌরবাসীকে রক্ষা করতে আজ আবারও আপনার সঠিক নেতৃত্ব ও নির্দেশনার বড় বেশী প্রয়োজন হয়ে পড়েছে।

মাননীয় মেয়র মহোদয় আপনি নিজেও বুঝতে পারছেন আপনার এবং আমাদের সবার প্রাণের শহর কক্সবাজার ক্রমাগত মহামারী করোনার হট স্পটে পরিণত হতে চলেছে। আগামীর দিনগুলি হবে আমাদের জন্য বড়ই কঠিন এবং করুণ। এই অবস্থায় আপনার কিছু নির্দেশনাই হয়তোবা এই শহরকে আগামীর মহাবিপর্যয় হতে রক্ষা করতে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে পারে।

মাননীয় মেয়র মহোদয় আপনার অধীনে পৌর এলাকার ১২টি ওয়ার্ড ১২ জন কাউন্সিলরকে প্রধান করে এক একটি কমিটি গঠণ করে দিন। এই কমিটি স্ব স্ব ওয়ার্ডে প্রতিটি ঘরে ঘরে গিয়ে করোনা সংক্রমিত বা করোনার উপসর্গ সম্বলিত কোন রোগী আছে কিনা তার খোঁজ খবর নিবেন। যদি কোন রোগীর সন্ধান পান সাথে সাথে তাকে টেস্ট করানোর ব্যবস্থা করে দিবেন। যদি রোগী করোনা পজিটিভ হয় তাহলে রোগীকে কোয়ারেন্টাইন,  আইসোলেশন যার ক্ষেত্রে যা প্রয়োজন তার ব্যবস্থা করে দিবেন। এই ক্ষেত্র আপনি স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ, যুবলীগ,ছাত্রলীগসহ আপনার আওতাধীন (যেহেতু আপনি জেলা আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক) সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদেরকে যুক্ত করতে পারেন।

মাননীয় মেয়র মহোদয় এভাবে যদি আপনি ১৫টা দিন জনগণকে এই সেবাটি প্রদান করতে পারেন, আশা করি ইনশাআল্লাহ আমরা পৌরবাসী আপনার নেতৃত্বে করোনা যুদ্ধে জয়ী হতে সক্ষম হবো। আর আপনি হবেন আমাদের সেই স্বপ্নের ফিনিক্স পাখি।।

অনুরোধক্রমে-
শহিদুল হক সোহেল
সাধারণ সম্পাদক
কক্সবাজার জেলা যুবলীগ”