পাঠক কলাম:

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মহোদয়,
জেলাঃকক্সবাজার
বিষয়ঃ বাজারদ্রব্যের মূল্য দ্রুতহ্রাসের জন্য আবেদন।

সবিনয় নিবেদন এই যে,আমরা ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর হত দারিদ্র মানুষ। বাংলাদেশে বসবাস করে রাষ্ট্রের বিধি বিধান নিয়ম লঙ্ঘন করার মতো অনিয়ম কখনোই করিনি। তবুও দৈনিক জীবন যাপনের এতোটা গ্লানি নিয়ে বেঁচে থাকাটা দুঃসাধ্য। আমিও একজন দিনমজুর কিংবা নিম্নশ্রেণীর জনসাধারণ। আমাদের অর্থায়নে আহমরি সঞ্চয় নেই, অট্টালিকায় বসে প্রভাবশালী হওয়ার মতো মিছে স্বপ্ন দেখাটাও আকাশচুম্বী। পরিশ্রমী কোন কাজ দিয়ে দিন শুরু হয় ব্যাতি ব্যস্ততায়। শেষ হয় পুরোটা দিনের অঝোর ক্লান্তিময় শারীরিক দুর্বলতায়। বাংলাদেশ’ একটি উন্নয়নশীল দেশ, উন্নয়নের ধারাবাহিকতা প্রতিনিয়ত’ই চলমান থেকে যায়। উন্নত রাষ্ট্র হিসাবে বিশ্বের কাছে উন্মোচিত হওয়া বড়’ই চ্যালেঞ্জে পরিণত হলেও অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও অসংখ্য প্রকল্পের কাজ বহমান । সর্বোপরি মানুষও আশায় বেঁচে থেকেছে নিরুৎসাহী জীবন নিয়ে। থাকার মতো বাসস্থান পেলেও অর্থনৈতিক মন্দা থেকে যায়। বাজার দ্রব্যের উগ্রবৃদ্ধি টানাপোড়ন সংসারে হতাশা ছাড়া সুখের দেখা দারিদ্র জনগোষ্ঠী অতি সহজে পায়না। কমতি নেই কোনকিছুই, চাহিদার বাহিরে চাউল,তৈল,ময়দা,মটরশুঁটি থেকে শুরু করে অনেক প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি চড়াও দামে বেড়ে গেছে। ইতিমধ্যে অনেক পরিবারের খাবার যোগান করা কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। অনাহারে থেকেও হাসিঁমুখে অনেক মানুষকে দেখা যায় একটু স্বস্তির স্বনির্ভরতায়। বাজারের মূল্যহ্রাস চাই, পরিবারের মুখে খাবার দিতে চাই।

অতএব, মহোদয়ের নিকট আকুল আবেদন অবিলম্বে বাজারদ্রব্যের মূল্য কমিয়ে দারিদ্র জনগনকে বেঁচে থাকার সুযোগ করে দিন।

নিবেদক:
কক্সবাজার জেলার মহেশখালীর হতদারিদ্র জনগন।
মোবারক হোছাইন।