গত১৬ জুলাই সোস্যাল মিড়িয়াসহ বিভিন্ন মাধ্যমে “মহেশখালীতে বিচার চাইতে গিয়ে তরুণী ধর্ষণ, ধামাচাপা দিতে মরিয়া প্রভাবশালী” শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। সংবাদটি সম্পুর্ণ বানোয়াট, মিথ্যা এবং উদ্দেশ্য প্রণোদিত। তাই সংবাদটির তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দ্রা জানিয়েছেেন মাতারবাড়ী ৬নং ওয়ার্ড়ের মেম্বার জাকের হোসেন।

তিনি এ প্রতিবেদনকে মিথ্যা, ভিত্তিহীন, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে দাবি করে বলেছেন, এতে সমাজে তাঁদের সম্মানহানি হয়েছে।

প্রতিবেদনে যে ভিকটিমের মা রোকসানা বেগমের যে বক্তব্য তুলে ধরছে তা সম্পূর্ণ বানোয়াট।
স্থানীয় ৬ নং ওয়ার্ডের আব্দুল গফুরর স্ত্রী রোকসানা বেগম একটা ভিড়িও প্রতিবেদনে বলেন:-(মায়ের ভিড়িও সংরক্ষিত)আমার মারফতে যে বক্তব্য তুলে ধরা হয়ছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ভিত্তিহীন মনগড়া যা উদ্দেশ্যপ্রণিত ও মানহানিকর, আমার মেয়ের বিয়ে ভাঙার জন্য একটি মহল অপচেষ্টা চালাচ্ছে, এর ধারাবাহিকতায় মেম্বার জাকের হোছেন ও আলী আজগর কে জড়িয়ে যে সংবাদ মাধ্যমে ছড়ানো হচ্ছে।বিভিন্ন ভাবে আমাকে কল করে মেম্বার আর আলী আজগরের বিরুদ্ধে মিথ্যা কথা বলিয়ে মান হানি করলে মোটা অংকের টাকা দেওয়ার ও লোভ দেখায়,তাতে আমি রাজি হয়নি।এরপরও সোস্যাল মিড়িয়ায় আমার নাম জড়িয়ে যে বক্তব্য তুলে ধরা হয়ছে তার তীব্র প্রতিবাদ জানায়।

৬নং ওয়ার্ডের মেম্বার জাকের বলেন:-আমার বিরুদ্ধে কিছু দুষ্কৃতিকারী উঠেপড়ে লেগেছে,আমার বিরুদ্ধে সোস্যাল মিড়িয়া সহ বিভিন্ন মাধ্যমে অপপ্রচার চালাচ্ছে একটি মহল।যে মেয়েটি জড়িয়ে বিভিন্ন অপপ্রচার চালাচ্ছে আমি মেয়েটাকে চোখে পর্যন্ত দেখি নাই,মেয়ে এবং মেয়ের মা একটা সালিশ নিয়ে আমার সাথে যোগাযোগ করে, তাদেরকে আমি নির্দিষ্ট সময়ে মিমাংসায় বসাতে ব্যর্থ হওয়া,তাদের ডেকে আইনের আশ্রয় নিতে বলি,যার তথ্যবহুল প্রমাণ সহ কল রেকর্ড রয়েছে আমার কাছে।

তিনি আরো জানান:-আমাকে মোবাইল ফোনে চাঁদা দাবী করে চাঁদা না দিতে অস্বীকৃত জানালে আমার বিরুদ্ধে সোস্যাল মিড়িয়ায় ফেইক আইডি সহ বিভিন্ন মাধ্যমে অপপ্রচার চালায়,মোবাইল ফোনে চাঁদা দাবী সহ বিভিন্ন কিছুতে ফাঁসিয়ে দিবে বলে ফোনে প্রতিনিয়ত হুমকি দে(যার রেকর্ড সংরক্ষিত)।
সমাজের একটি কুচক্রীমহল আমাকে সমাজে হেয় প্রতিপন্ন করার লক্ষে সংশ্লিষ্ট সংবাদ দাতাকে মিথ্যা, বানোয়াট ও ভুয়া তথ্য প্রদান করে সংবাদটি পরিবেশন করেছে। সংবাদে উল্লেখ্য করা হয়েছে এটা ধামাচাপা দিতে একটি প্রভাবশালী মহল উঠে পড়ে লেগেছে। যেহেতু ভিকটিম একটি অসহায় পরিবার কথা প্রকাশিত সংবাদে উল্লেখ করা হয়েছে। সোস্যাল মিড়িয়ায় প্রকাশিত সংবাদে আমার নাম জড়িয়ে যে বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে তা বানোয়াট ও মিথ্যা। সংবাদের প্রতিবাদ প্রকাশ করে ভ্রান্ত থেকে সামাজিক মর্যাদা রক্ষার দাবি জানাই।

মিথ্যা ও ভিত্তিহীন প্রতিবেদন প্রকাশ থেকে বিরত থাকতে সংশ্লিষ্ট প্রতিবেদক ও গণমাধ্যমের প্রতি আহ্বান জানান।