এ.কে.রিফাত: (নিজস্ব প্রতিবেদক)

অষ্টম ধাপের ইউপি নির্বাচনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মহেশখালী উপজেলার দুই ইউপি কালারমারছড়া ও বড় মহেশখালীতে আগামী ১৫ জুন নির্বাচন অনুষ্টিত হওয়ার কথা রয়েছে।তারই ধারাবাহিকতায় প্রার্থীদের প্রচার প্রচারনায় মুখরিত হয়ে উঠেছে তাদের নির্বাচনী এলাকা।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, ১৫ জুন অনুষ্টিতব্য মহেশখালীর দুই ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে অনেক প্রার্থীই তাদের প্রচার প্রচারনায় লঙ্গন করছে নির্বাচনী আচরনবিধি। মানছেনা উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা নির্বাচন অফিস কর্তৃক বেধে দেওয়া নির্বাচনী আচরনবিধি।দেওয়ালে পোষ্টার লাগানো, অন্য প্রার্থীদের সমর্থকদেরকে হয়রানি করা,যান চলাচলের জন্য সরকারি রাস্তায় নির্বাচনী পথসভা,প্রচার প্রচারনার জন্য বেধে নির্দিষ্ট সময়সীমা উপেক্ষা করা সহ নানান নিয়মনীতি ভঙ্গ করার অভিযোগ উঠছে প্রার্থীদের বিরুদ্ধে।

তারই পরিপ্রেক্ষিতে উক্ত নির্বাচনী এলাকায় অভিযুক্ত প্রার্থীদের নির্বাচনী এলাকায় ৩১ মে কঠোর অভিযান পরিচালনা করেন মহেশখালী উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃসাইফুল ইসলাম।এ অভিযানে বড় মহেশখালী ইউপির সাধারন সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের ছয়জন প্রার্থীদেরকে দশ হাজার টাকা করে মোট ষাট হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।এসময় তাদের পরবর্তীতে এমন আচরনবিধি লঙ্গন না করার জন্যও নির্দেশ দেওয়া হয়।

জরিমানা করা প্রার্থীরা হলেন,বড় মহেশখালী ইউপির ০৭ নং ওয়ার্ডের সাধারন সদস্য পদপ্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম (টিউবওয়েল প্রতীক) ও মোহাম্মদ শফিউল আলম(ঘুড়ি প্রতীক), ০৩ নং ওয়ার্ডের বাদশা মিয়া(তালা প্রতীক)০৯ নং ওয়ার্ডের জিল্লুর রহমান মিন্টু(মোরগ প্রতীক) ও মোহাম্মদ শামশুল আলম(ঘুড়ি প্রতীক) এবং ৭-৮-৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা আসনের প্রার্থী হাসিনা আক্তার(তালগাছ প্রতীক) ।

এ বিষয়ে মহেশখালী উপজেলার সহকারী কমিশনার ভুমি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃসাইফুল ইসলামের কাছ থেকে জানতে চাইলে তিনি বলেন,বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন হইতে প্রেরিত চিঠিতে স্পষ্ট উল্যেখ রয়েছে যে,নির্বাচন হবে অবাধ সুষ্টু ও নিরপেক্ষ। এই ধারাকে অব্যাহত রাখতে প্রার্থীদেরকে অবশ্যই নির্বাচনী আচরনবিধি মেনে চলতে হবে তা না হলে গুনতে হবে বিধি মোতাবেক জরিমানা।

তিনি আরও জানান,আগামী ১৫ জুন অনুষ্টিতব্য মহেশখালীর দুই ইউপি নির্বাচনের পরিবেশ শান্ত রাখতে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল প্রকার পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়েছে।প্রার্থীদের আচরনবিধি লঙ্গনের খবর পেয়ে উক্ত নির্বাচনী এলাকায় এই অভিযান পরিচালনা করেন বলে জানান।তিনি আরও বলেন নির্বাচনী এলাকাসমুহে অদ্যাবধি হইতে এ অভিযান ভোট গ্রহনের শেষ পর্যায় পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।