নিজস্ব প্রতিবেদক:

মহেশখালীর মাতারবাড়ীতে সম্প্রতি বেড়েই চলছে গাড়ী অবরোধের মতো ঘটনা। সাধারণত ছোট কোন সমস্যা দেখা দিলেই টমটম গাড়ীর ড্রাইভারগণ ডাক দেয় অবরোধের। এতে দূর্ভোগ পোহাতে হয় প্রায় লক্ষাধিক মানুষের।

তেমনি গতকাল ১৯ এপ্রিল (মঙ্গলবার) স্থানীয় ৯নং ওয়ার্ড সাইরার ডেইল এলাকায় উক্ত ওয়ার্ডের মেম্বার মোহাম্মদ আলী ও ড্রাইভারদের সাথে ছোট কথা কাটাকাটির মতো ঘটনার জের ধরে প্রায় ৪/৫ ঘন্টা সড়ক অবরোধ করে রাখে টমটম ড্রাইভার সহ মালিক সমিতি।

এ নিয়ে মাতারবাড়ীর স্থানীয় ৯নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোহাম্মদ আলী দ্বীপ নিউজ টোয়েন্টিফোরকে জানায়, সাইরার ডেইল এলাকায় কেন যাত্রী সিএনজি ষ্টেশন থেকে আসলে ২ নং গেইটে নামিয়ে দেয়। এতে ৪৪ পরিবার সহ তাঁর পাশের প্রায় ৪/৫ শত পরিবারগুলো গাড়ী না পাওয়ায় দূর্ভোগ পোহাতে হয়। সকলের সুযোগ সুবিধার কথা চিন্তা করে টমটম ড্রাইভারদের বললাম ২নং গেইটের পরিবর্তে ৪৪ পরিবার এলাকায় নতুন ভাবে টমটম ষ্টেশন করতে। তাতে ৪/৫ শত পরিবার সহ প্রকল্পের শ্রমিকদেরও দূর্ভোগ পোহাতে হবেনা।

শুধুমাত্র এইটুকু বলার কারণে – স্থানীয় সাইরার ডেইল এলাকার লাইনম্যানের প্ররোচণায় টমটম অবরোধ করে রাখে। যার ফলশ্রুতিতে সারা মাতারবাড়ীর মানুষ কষ্ট পেয়েছে। টমটম ড্রাইভারদের গায়ে হাত তুলেছি বলে বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়েছে সংবাদকর্মী ভাইদের। তাছাড়া, মাতারবাড়ীতে ১৮ বছরের নিচে টমটম ড্রাইভার খুবই বেশি। যারকারণে নিত্যদিন ঘটে যাচ্ছে নতুন নতুন সড়ক দুর্ঘটনা। সড়ক দূর্ঘটনা ঘটলে স্থানীয় টমটম মালিক সমিতি সহ লাইনম্যান কাউকে পাওয়া যায় না ঘটনাস্থলে। মেম্বার – চেয়ারম্যানদের দৌড়াদৌড়ি করতে হয় এসব ঘটনা নিয়ে। ঈদের পর মাতারবাড়ী টমটম লাইন স্থানীয় পরিষদের আওতায় আনার ব্যবস্থা চলছে বলেও জানান।

সর্বশেষ তিনি বিশেষ করে স্থানীয় সাইরার ডেইল এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ও সড়ক দূর্ঘটনা রোধ করতে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

এব্যাপারে মাতারবাড়ীর টমটম মালিক সমিতি ও ইউনিয়ন শ্রমিকলীগের সভাপতি নুরুল আলমের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি গতকালকের অবরোধের বিষয়ে জানায়, আমি লাইনম্যানের কাছ থেকে শুনেছি স্থানীয় ৯নং ওয়ার্ডের মেম্বার কথাকাটাকাটির জের ধরে ৩জন ড্রাইভারকে মারধর করে। ফলে তারা সাময়িক অবরোধ করেন। পরে চেয়ারম্যান বিচারটি করবে এই আশ্বাসে ড্রাইভাররা অবরোধ তুলে নেন।