চলতি বর্ষার শুরু থেকেই মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ী সংযোগ সড়কে প্রায় আঁধা কিঃ মিঃ পর্যন্ত জায়গায় বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে বর্তমানে উক্ত স্থানে মরণ ফাঁদে পরিনত হয়েছে । বিশেষ করে কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পে যাওয়ার জন্য বিকল্প সড়ক না থাকায় উক্ত সড়কটি দিয়ে কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পের বড় বড় মালবাহী লরি গাড়ী চলাচল করায় অসংখ্যা খানাখন্দ সৃষ্টি হয়েছে। অপরদিকে অনেক ছোট বড় বিভিন্ন প্রকার যানবাহন দুর্ঘটনার শিকার হন ।

এবং বিভিন্ন যানবাহন দুর্ঘটনার কবলে পড়ে অনেক যাত্রীও আহত হয়েছেন । এনিয়ে মাতারবাড়ী সহ পুরো মহেশখালীতে এ ভাঙ্গা সড়কের ছবি সংযুক্ত করে ফেসবুকে বিভিন্ন সমালোচনার ঝড় তুলে । চলতি বর্ষার শুরু থেকে এ ভাঙ্গা সড়ক দিয়ে যাতায়াতে সীমাহীন দুর্ভোগে রয়েছে মাতারবাড়ীবাসি । মুলক এই সড়কটি এলজিইডি’র অধিনে হওয়ায় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানরাও উক্ত সড়কে কাজ করার কোন সুযোগ পাচ্ছে না । একারনে দ্বীর্ঘ দিন যাবত মাতারবাড়ীর সংযোগ সড়কটি আঁধা কিলোমিটার পর্যন্ত গর্তের সৃষ্টি হলেও সংস্কারের ক্ষেত্রে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ অসহায়ত্বের ভূমিকায় রয়েছেন ।

অবশেষে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ’র আন্তরিকতা ও আপ্রাণ প্রচেষ্টা এবং তার আবেদনের প্রেক্ষিতে স্থানিয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিকের নির্দেশে এবং উপজেলা প্রকৌশলীর তত্ত্বাবধানে মাতারবাড়ীর ভাঙ্গা সড়কটি প্রাথমিক ভাবে সংস্কার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে ।

১৬ সেপ্টেম্বর বুধবার দুপুর থেকে মাতারবাড়ীর ইউপি চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহর উদ্যোগে বর্তমানে সড়কটিতে সংস্কার কাজ করা হচ্ছে । আওয়ামী লীগ নেতা ও চেয়ারম্যান মাস্টার মোহাম্মদ উল্লাহ উপস্থিত থেকে কাজ তদারকি করে যাচ্ছেন। এতে কিছুটা হলেও মাতারবাড়ীবাসি এই সড়কের দীর্ঘ দিনের জনদুর্ভোগ থেকে রক্ষা পাবে এমনটা মনে করেন সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসি ।
এজন্য সাংসদ আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক ও ইউপি চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ কে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন মাতারবাড়ীর বাসিন্দারা ।