নিউজ ডেস্ক:

দুইবার স্থগিতর পর রাত পোহালেই মহেশখালী উপজেলার ৩ ইউপি ও এক পৌরসভা নির্বাচন।

বর্তমান সরকারের সর্ববৃহৎ উন্নয়ন প্রকল্প স্থাপনের জন্য দেশেজুড়ে গুরুত্বপূর্ণ ইউপিতে পরিণত হয়েছে মহেশখালীর মাতারবাড়ী। মাতারবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র কালো টাকার ছড়াছড়ি – বহিরাগত সন্ত্রাসীর আগমন সহ  লোকমুখে শুনা যাচ্ছে নানান কথা।

স্থানীয় ১নং ওয়ার্ড উত্তর সিকদার পাড়া, ২নং ওয়ার্ড বান্ডির সিকদার পাড়া, খন্দরবিল, ৩ নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ, উত্তর রাজঘাট, টেকপাড়া, ৪নং ওয়ার্ড বিলপাড়া, ৫ নং ওয়ার্ড মিয়াজির পাড়া, ৬ নং ওয়ার্ড পশ্চিম পাড়া, ৮ নং ওয়ার্ড মগডেইল, ৯নং ওয়ার্ড সাইরার ডেইল এলাকায় একাধিক প্রার্থীদের পক্ষ থেকে জনপ্রতি ভোটারদের ৫০০/১০০০ নগদ অর্থ দেওয়া খবর এখন লোকমুখে।

এই কালো টাকার ছড়াছড়ি নিয়ে মাতারবাড়ীর সোস্যাল মিডিয়া সরব। অনেকে দাবি করছেন, ভোটারদের দেওয়া টাকার নোট গুলো জাল।

প্বার্শবর্তী ইউনিয়ন কালারমারছড়া সহ বহিরাগত বিভিন্ন এলাকার অনেক আত্মগোপনে থাকা একাধিক মামলার অসংখ্য সন্ত্রাসীদের মাতারবাড়ী প্রবেশে হিড়িক পড়েছে ও মোটরসাইকেলে/সিএনজিতে করে ঘুরাঘুরি করতে দেখে স্থানীয়দের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে বলে গুঞ্জন ওঠেছে এলাকাবাসীর কাছে।

সোস্যাল মিডিয়ায় অনেক ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ওয়ালে দেখা যাচ্ছে, জাল ব্যালেট পেপার নিয়েও মাতারবাড়ীতে একটি পক্ষ প্রবেশ করেছে বলে শুনা গেছে।

মাতারবাড়ীতে সরকার দলীয় প্রার্থীর পাশাপাশি মাঠে রয়েছেন ৫ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী। সূত্রে জানা যাচ্ছে, ভোটারদের ভোটাধিকার হরনে মাঠে ইটের পরিবর্তে অন্যান্য প্রার্থীরা পাটকেলে জবাব দেওয়া খবর পাওয়া যাচ্ছে একাধিক সূত্রে।

এক্ষেত্রে ভোটার মনে করেন সহিষ্ণুতা বিহীন নির্বাচন করতে প্রধান ভূমিকা রাখতে পারে প্রশাসন। সুষ্ঠু নির্বাচনে নির্বাচিত প্রার্থীকে মেনে নিতে প্রস্তুত তাঁরা।