দ্বীপ নিউজ টোয়েন্টিফোর:

আগামী ১১ এপ্রিল প্রথম দফায় দেশের ৩৭১ ইউনিয়ন পরিষদ, ১১ পৌরসভার নির্বাচন এবং ১ টি সংসদীয় আসনের উপ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন গত ৩ মার্চ।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এসব নির্বাচনের জন্য ৫ মার্চ থেকে মনোনয়ন ফরম বিতরণ করছে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ড এবং স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের সভা গণভবনে অনুষ্ঠিত হয়েছিল গত ১১ ফেব্রুয়ারি শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায়।

উক্ত সভা শেষে গত শনিবার বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়ার স্বাক্ষরিত একটি প্রতিলিপিতে। আগামী ১১ এপ্রিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া সংসদীয় একটি আসনের উপ নির্বাচনের, ১১ পৌরসভার নির্বাচনের, ৩৭১ টি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে ৩০০ টির দলীয় প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয় ক্ষমতাসীন এই দলটি।

উক্ত প্রতিলিপির শেষ পৃষ্ঠায় ঢাকা – চট্রগ্রাম – সিলেট বিভাগগুলোর ইউনিয়ন ছাড়া দেশের বাকী ইউনিয়ন গুলোর দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত করে। আজ ১৫ই মার্চ সোমবার উল্লেখিত বিভাগ গুলোর দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত করতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে মনোনয়ন বোর্ডের মুলতবি সভা অনুষ্ঠিত হবে দুপুর সাড়ে ১২ টায়। সেখানেই চূড়ান্ত উল্লেখিত বিভাগ গুলো সহ কক্সবাজারের ১৫ ইউনিয়ন গুলোর নৌকার মাঝি কে হবে?

মহেশখালী উপজেলার ৩ টি ইউনিয়ন (মাতারবাড়ী – হোয়ানক – কুতুবজোম) এর নির্বাচনও ১১ এপ্রিল, দলীয় প্রতীকের চূড়ান্ত ঘোষণা হবে আজকে সন্ধ্যায়। তবে এই তিন ইউনিয়নে কে হচ্ছে নৌকা মাঝি?

বিশেষ সূত্রে জানতে পারি, মহেশখালী উপজেলার এই ৩ ইউনিয়ন নৌকার জন্য দৌড়ঝাঁপে আছে এমন প্রত্যাশীদের মাঝে হোয়ানক ইউনিয়ন এগিয়ে আছে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক ওয়াজেদ আলী মুরাদ এবং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মীর কাশেম চৌধুরী।

কুতুবজোম ইউনিয়ন থেকে দলীয় মনোনয়ন পেতে এগিয়ে আছে বর্তমান চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন খোকন এবং উপজেলা যুবলীগের যুগ্ন আহ্বায়ক শেখ কামাল।

বর্তমান সরকারের বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পের কাজ মাতারবাড়ীতে হওয়ায়, উপজেলা ও জেলায় গুরুত্ব বেড়েছে মাতারবাড়ী ইউনিয়নের। মাতারবাড়ী থেকে দলীয় প্রতীক নৌকার মাঝি কে হবে? তানিয়ে সকল মনোনয়ন প্রত্যাশীর নিজ নিজ সমর্থকদের মাঝে চলছে নান গুঞ্জন।

তবে ঢাকাতে অবস্থান নেওয়া দ্বীপ নিউজ টোয়েন্টিফোরের ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি জানায়, কুতুবজোম – হোয়ানক ইউনিয়নে উল্লেখিত নামগুলোর মধ্যেই দলীয় মনোনয়ন ঘোষণা হওয়ার সম্ভবনা বেশি রয়েছে।

তবে মাতারবাড়ীর ক্ষেত্রে বিষয়টা উল্টো, গত ১৩ই মার্চ অনুষ্ঠিত হওয়া মনোনয়ন বোর্ডের সভার দিনে সম্ভবনাময় দলীয় প্রার্থী আর আজকে চূড়ান্ত ঘোষণার দলীয় প্রার্থী কে হবে তাঁর সিদ্ধান্তে অনেকটা ভিন্নতা দেখা যাচ্ছে বলেও ধারণা করেন তিনি। তবে মাতারবাড়ী থেকে ডজনখানেক দলীয় প্রতীক প্রত্যাশীদের মধ্যে ৩ জনে মধ্যেই যেকোনো একজন পাবেন বলে আশা করেন তিনি। তাঁরা হলো, কক্সবাজার জেলা পরিষদের সদস্য মাষ্টার রুহুল আমিন, মহেশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এনামুল হক চৌধুরী রুহুল, মাতারবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগে সভাপতি আলহাজ্ব জিএম ছমি উদ্দিন।

রাজনৈতিক জটিলতা ও মারপেঁচের মধ্য দিয়ে তাঁদের মধ্যে কে কে হবে দলীয় প্রার্থী? তা জানতে অপেক্ষা করতে হবে সন্ধ্যা পর্যন্ত!