1. dwipnews24.info@gmail.com : Dwip News 24 :
  2. editor@dwipnews24.com : Newsroom :
লিবিয়া: নিহত ২৬ জন বাংলাদেশির মরদেহ দেশে আনা হচ্ছে না | দ্বীপ নিউজ
December 2, 2022, 10:26 pm
শিরোনাম :
মহেশখালীতে পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু মহেশখালী পৌরসভায় ট্রাকের চাপায় মোটরসাইকেল আরোহীর শরীরের নিম্নাংশ বিচ্ছিন্ন মহেশখালী হাসপাতালে চালু হল নবজাতক পরিচর্যা কেন্দ্র মহেশখালীতে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হবে ‘আন্তর্জাতিক ইসলামী কনফারেন্স’ চিহ্নিত বালিখেকোদের সাথে বিট অফিসারের সখ্যতা, বন্ধ হচ্ছে না অবৈধ বালি উত্তোলন আপনার সাহায্যে বাঁচাতে পারে  কোরআনে হাফেজ জামাল উদ্দিন’র জীবন অনিশ্চিত ভবিষ্যৎ, পেশা পরিবর্তনের পথে কোহেলিয়া নদীর জেলেরা মহেশখালীতে উপকারভোগীর টাকায় নির্মিত হচ্ছে মুজিববর্ষের ঘর! মহেশখালী থানা পুলিশের সাঁড়াশি অভিযানে ২৩ জন ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী আটক কালারমারছড়া ও ছোট মহেশখালীতে ঘরে আগুন লেগে এক শিশুর মৃত্যু, পার্শ্ববর্তী ঘরে ব্যাপক লুটপাট

লিবিয়া: নিহত ২৬ জন বাংলাদেশির মরদেহ দেশে আনা হচ্ছে না

  • আপডেটের সময় : রবিবার, মে ৩১, ২০২০
  • 53 ভিউ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

লিবিয়ায় অপহরণকারীদের গুলিতে মারা যাওয়া বাংলাদেশিদের মরদেহ মিজদাতেই দাফন করা হবে বলে নিশ্চিত করেছে লিবিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের দূতাবাসের একজন কর্মকর্তা।

দূতাবাসের শ্রম বিষয়ক কাউন্সিলর অশরাফুল ইসলাম জানান, নিহতদের পরিবারের সাথে আলোচনার মাধ্যমে মিজদা শহরেই মরদেহগুলো দাফনের প্রক্রিয়া চলছে।

আশরাফুল ইসলাম আরও বলেন, “লাশগুলো সেখানে (মিজদায়) দাফন করা ছাড়া আর কোনো বিকল্প নেই। কাজেই এটা মেনে নিতেই হবে।”

তিনি জানান ঘটনাস্থল মিজদার একটি হাসপাতালে বর্তমানে লাশগুলো রয়েছে।

“মিজদা খুবই ছোট একটি অনুন্নত শহর, সেখানে লাশগুলো সংরক্ষণের জন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা নেই।”

এছাড়া যুদ্ধকবলিত এলাকা হওয়ায় এবং লিবিয়ার জাতিসংঘ সমর্থিত সরকারের নিয়ন্ত্রণের বাইরের এলাকা হওয়ায় রাজধানী ত্রিপোলির সাথে মিজদা শহরের যোগাযোগের ব্যবস্থাও বেশ খারাপ বলে জানান আশরাফুল ইসলাম।

আর করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে সব ধরণের আন্তর্জাতিক বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় লাশগুলো মিজদা শহর থেকে সরিয়ে নেয়া সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেন তিনি।

“এসব কারণে লাশ হস্তান্তর করার বা লাশ বাংলাদেশে পাঠানোর কোনো সুযোগ আমরা দেখছি না। তাই আমরা লাশগুলো দাফন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি এবং তাদের পরিবারের সাথে কথাবার্তা বলছি।”

আশরাফুল ইসলাম আশা প্রকাশ করেন যে আজ থেকেই লাশগুলো দাফনের প্রক্রিয়া শুরু হতে পারে।

বৃহস্পতিবার সকালে লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপলি থেকে ১৮০ কিলোমিটার দক্ষিণের মিজদা অঞ্চলে অপহরণকারীদের গুলিতে ২৬ জন বাংলাদেশি নিহত হন। আহত হন আরো ১১ জন বাংলাদেশি।

তারা সবাই অবৈধভাবে লিবিয়া হয়ে ভূমধ্যসাগর পারি দিয়ে ইতালি যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন।

কেন এবং কীভাবে বাংলাদেশি অভিবাসীদের গন্তব্য হয়ে উঠলো লিবিয়া?

লিবিয়ায় কীভাবে হত্যা করা হলো ২৬ জন বাংলাদেশিকে?

অবৈধভাবে লিবিয়ার বেনগাজি বন্দরে পৌঁছে কয়েকমাস গোপনে ছিলেন এই অভিবাসন প্রত্যাশীরা।

এই মাসের মাঝামাঝি সময়ে বেনগাজি থেকে উপকূলবর্তী যুওয়ারা অঞ্চলে যাওয়ার পথে অপহরণকারীদের কবলে পড়েন তারা।

এরপর ২৮শে মে সকালে অপহরণকারীদের গুলিতে ২৬ জন বাংলাদেশিসহ মোট ৩০ জন মারা যায় বলে জানায় লিবিয়ার জাতিসংঘ সমর্থিত সরকার।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Comments are closed.

এই বিভাগের আরো খবর
© সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত © 2022 dwipnews24.net
Desing & Developed BY ThemeNeed.com
error: Content is protected !!