শাহাজাহান: (হোয়ানক)

মহেশখালী উপজেলার হোয়ানক ইউনিয়নের কেরুনতহোয়ানকে দশ বছর বয়সী এক কন্যা শিশু লাকড়ি আনতে গিয়ে আসলো লাশ হয়ে লী নয়াপাড়া গ্রামে পুকুরে ডুবে তানিয়া (১০) নামের এক কন্যা শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

অদ্য (৩০জুন) বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে স্থানীয় নয়াপাড়া গ্রামের খোইরঘের জ্বিরি নামক পাহাড়ে লাকড়ি আনতে গিয়ে পানেরর বরজ সেচ দেওয়ার পুকুরে ডুবে মৃত্যু বরণ করেন বলে জানাযায়। তানিয়া স্থানীয় নয়াপাড়া গ্রামের সাদ্দাম হোছেনের প্রথম কন্যা সন্তান।

স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়,আজ বৃহস্পতিবার সকালে তার চাচাতো ভাই,বোনদের নিয়ে লাকড়ি আনতে গিয়ে তারা পান বরজ সেচ দেওয়ার একটি পুকুরে গোসল করতে নামলে তানিয়া নামক মেয়েটি ডুবে যায়। ঐ সময় সাথে থাকা সঙ্গিদের আর্তচিৎকারে পানের বরজে কাজ করা লোকজন এসে দীর্ঘক্ষণ খোঁজাখোঁজির পর পুকুরের তলদেশ থেকে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন।

গোলাম কুদ্দুস নামের এক ব্যক্তির সাথে কথা বলে জানাযায়, সকালে আমরা পানের বরজে কাজ করতে আসি কাজ শুরু করার কিছুক্ষণ পর তানিয়াসহ কয়েকজন লাকড়ির জন্য পাহাড়ে আসে।কিছুক্ষণ লাকড়ি সংগ্রহ করার পর তারা সকলে পুকুরে গোসল করতে নামে।তাদের কে গোসল করতে নামতে দেখে গোসল না করতে নিষেধ করলেও তারা নিষেধ অমান্য করে গোসল করতে নেমে যায়। পুকুরে গোসল করা অবস্থায় হঠাৎ তানিয়ে পানির নিচে ডুবে যায়,সেসময়ে তারসাথে থাকা সঙ্গিরা চিৎকার করলে আমরা গিয়ে দীর্ঘক্ষণ খোঁজাখোজি করে একদম পুকুরের নিচ থেকে তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসি।

তানিয়াকে বাড়িতে নিয়ে আসার পর তার পিতা সাদ্দাম হোছেন মহেশখালী হাসপাতালে নিয়ে যায়।মহেশখালী হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার তানিয়াকে দেখে মৃত ঘোষণা করেন।